শনিবার ১৩ আগস্ট ২০২২, ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ভোলায় বিএনপি-পুলিশ সংঘর্ষে নিহত ১

প্রকাশিত : 10:54 AM, 1 August 2022 Monday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

তেল গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি এবং লোড শেডিং এর প্রতিবাদে রবিবার ভোলায় বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিলের সময় পুলিশের সাথে সংঘর্ষ ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে।পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে পুলিশ লাটিচার্জ ও পুলিশ টিআর সেল নিক্ষেপ ও গুলি ছুড়ে।এ সময় সংঘর্ষে আব্দুর রহিম (৪০) নামে সেচ্ছাসেবক দলের এক কর্মী নিহত হয়েছে। এছাড়াও ১০ পুলিশসহ প্রায় অর্ধশতাধিক আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এঘটনায় পুলিশ ১২ জনকে আটক করেছে । এদিকে সাংবাদিক সম্মেলনে পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়, রাজনৈতিক হিন উদ্দেশ্যে বিশেষ পরিস্থিতি সৃষ্টির লক্ষে বিএনপি রাস্তায় নেমে পুলিশের উপর হামলা চালায়। পুলিশকে লক্ষ করে গুলি বর্ষণ করা হয়েছে।
এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে। ওই এলাকায় থম থমে অবস্থা বিরাজ করছে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রবিবার বেলা ১১ টার দিকে বিএনপির কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে তেল গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি এবং লোড শেডিং এর প্রতিবাদে ভোলা জেলা বিএনপি কার্যালয়ে প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করা হয়। সমাবেশে জেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম নবী আলমগীরের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক এ বি এম শোরেফ হোসেন। সমাবেশ শেষে দলীয় কার্যালয়ের সামনে রাস্তায় স্লোগান দিয়ে বিক্ষোভ মিছিল শুরু করে। এ সময় রাস্তা আটকে বিক্ষোভ করায় পুলিশের সাথে বিএনপির নেতাকর্মীদের ধাক্কা ধাক্কি,ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়।

এক পর্যায়ে পুলিশের উপর ইটপাকেল
বর্তমানে বিএনপি অফিস নিক্ষেপ করা হলেও পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে লাঠি চার্জ ও টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে। এ সময় উভয় পক্ষের মধ্যে ব্যাপক সংর্ঘষ হয়েছে। সংর্ঘষে আব্দুর রহিম (৪০) নামে সেচ্ছাসেবক দলের কর্মী নিহত হয়। ১০ পুলিশসহ অন্তত অর্ধশতাধিক আহত হয়েছে। গুরুতর আহতদের ভোলা ও বরিশালসহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন, সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আরমান হোসেন, এসআই আনিচ, এএসআই মোস্তফা, এএসআই জাফর হোসেন, জেলা বিশেষ শাখার এএসআই হুমায়ুন, কনস্টবল রাব্বি, গোয়েন্দা শাখার এএসআই নুর ইসলাম, নায়েক সঞ্জিব, কনস্টবল রেজাউল, কনস্টবল সুভাষ। ভোলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোহাম্মদ ফরহাদ সরদার সাংবাদিকদের জানান, বিএনপিকে শান্তিপূর্ন ভাবে সমাবেশ করার জন্য বলা হয়।

কিন্তু তার পরও তারা রাস্তা আটকে রাষ্ট্র বিরোধী স্লোগানসহ বিক্ষোভ করে এবং পুলিশের উপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। পুলিশ আত্ম রক্ষার্থে প্রথমে লাঠি চার্জ ও পরে টিয়ার সেল নিক্ষেপ করে। বিএনপির সাথে সংঘর্ষে পুলিশের অন্তত ১০জন সদস্য আহত হয়েছে। এবং ঘটনাস্থল থেকে ১২জনকে আটক করা হয়েছে। তিনি আরও জানান, পুলিশ আত্মরক্ষার্থে পুলিশ ৩০ রাউন্ড টিআরসেল এবং ১৬৫ রাউন্ড রাবার বুলেট ও সটগানের গুলি ছোড়ে। জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ ট্রুমেন জানান, পুলিশের গুলিতে তাদের আবদুর রহিম নামে সেচ্ছাসেবক দলের কর্মী নিহত হয়েছে। তার বাড়ি দক্ষিন দিঘলদী ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডে।

এছাড়াও ভোলা জেলা ছাত্র দল সভাপতি নুরে আলম, জেলা বিএনপির সাথারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ ট্রুম্যান, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির সোপান, জেলা সেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আলামিন, সুমন, লিখন চৌধুরী, মো: সেন্টু,সালাউদ্দিন,আলামিন, রাজিবসহ প্রায় একজত নেতাকর্মী আহত হয়েছেন বলে দাবী করা হয়। এর মধ্যে গুরুতর ১৭জনকে বরিশাল হাসপাতালে ও ৭ জনকে ঢাকায় পাঠানো হয় ।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT